HomeSuccess Storiesঅভাবের সংসারে হাল ধরতে শুরু করেছিলেন অটো চালানো! সারা রাজ্য আজ তাঁর...

অভাবের সংসারে হাল ধরতে শুরু করেছিলেন অটো চালানো! সারা রাজ্য আজ তাঁর প্রশংসায় পঞ্চমুখ

জীবনের অর্থই হলো ঘাত প্রতিঘাতের সাথে প্রতিনিয়ত নিজেকে মানিয়ে নিয়ে এগিয়ে চলার পথ। যেখানে পথ সবসময় সুগম হতে নাও পারে , আগামীর পথে বাধা বিপত্তি সমস্ত কিছুকে অতিক্রম করে এগিয়ে যাওয়াই জীবনে বেঁচে থাকার একমাত্র মূল মন্ত্র। তবে জীবনের এই কঠিন মুহূর্ত গুলো আমাদের অনেক শক্ত করে তোলে। সমঝোতা করার ভাষা শিখিয়ে যায়। হরিয়ানার বাসিন্দা প্রমীলা এইসবের জ্বলন্ত উদাহরণ। দীর্ঘ ৬ বছর ধরে অটো চালিয়ে আসছেন তিনি। তবে এত সহজ ছিলনা সবকিছু। কাজ শুরুর দিকে প্রচুর ব্যঙ্গ বিদ্রুপ এসবের মুখোমুখি হতে হয়েছিল তাঁকে। কিন্তু আজ তিনি একজন প্রতিষ্ঠিত অটো চালক শুধু তাই নয় সেইসঙ্গে বহু মহিলাকে প্রশিক্ষণ দিয়ে থাকেন। আজ আর কটাক্ষ নয় তার বদলে সারা রাজ্য তাঁর প্রশংসায় পঞ্চমুখ হয়ে থাকেন।

আরও পড়ুন: বেকারদের জন্য সুখবর! রাজ্যে ৭০০০ রেশন ডিলার পদে নিয়োগ শুরু, আবেদন করে মাসিক লক্ষ লক্ষ টাকা আয় করুন

বাবরা এলাকায় বাড়ি ছিল প্রমীলার । আর্থিক দুরাবস্থার সাক্ষী প্রথম থেকেই।অভাব অনটন নিত্য সঙ্গী। দিনের পর দিন সংসারে অভাব দেখতে দেখতে নিজেকে শক্ত করে তোলেন এবং অবশেষে সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেন সমাজের এই ব্যতিক্রমী এক পেশার। অটো চালানোর পেশাকে জীবনে বেছে নিলেন প্রমীলা। তারপরেই নিজের চেষ্টায় শিখেও ফেললেন অল্প দিনের মধ্যে অটো চালাতে। পুলিশ সুপার শশাঙ্ক আনন্দ সেইসময় প্রমীলা কে এই কাজে পাশে থেকে সাহায্য করে গিয়েছেন।

পিঙ্ক অটো প্রথম চালু করেছিলেন প্রমীলা। তারপর তাঁর সাথে উৎসাহিত হয়ে আরও ২০ জন নারীরা যোগ দিয়েছিলেন। দলে সদস্য সংখ্যা ক্রমশ বৃদ্ধি পেতে থাকে। বছর দেড়েক আগে প্রমীলা অসুস্থ হয়ে পড়ার কারণে অটো চালানো বন্ধ করে দেন। আত্মনির্ভর হওয়ার জন্য যেসব মহিলারা এগিয়ে আসেন তাদের পাশে সর্বদা থাকেন প্রমীলা এবং তার দল।

আরও পড়ুন: চাষ করেই বছরে ৫০ কোটি! অস্ট্রেলিয়ার মোটা বেতনের চাকরি ছেড়ে ভারতে বিশেষ চাষ শুরু করেন রাজস্থানের সিদ্ধার্থ

রোহতকের পাশাপাশি যেসব মহিলার অটো চালানোর প্রশিক্ষণের প্রয়োজন হয় সেই মহিলাই যোগাযোগ করেন প্রমীলা এবং স্থানীয় প্রশাসনের সাথে। প্রমীলা এবং তার বাহিনী গিয়ে তাঁদের শিখিয়ে দেন। তিনি দাবি করেন যেকোনো নারীকে তিনি সর্বোচ্চ ৩ দিনের মধ্যে অটো চালাতে শিখিয়ে দিতে পারেন। ২০১৯ সালে প্রিয়াঙ্কা গান্ধী নির্বাচনের প্রচার করতে রোহতকে পৌঁছেছিলেন এবং তিনি প্রমীলার অটোতে উঠে তাঁর খুব প্রশংসা করেছিলেন। এখনও পর্যন্ত তিনি অটো চালানোর প্রশিক্ষণ চালিয়ে যাচ্ছেন।

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Most Popular

Recent Comments