HomeSuccess Storiesমাথা গোঁজার ঠাঁই ছিল না, আজ তার কোম্পানিতে কাজ করে ৩০০ কর্মী!...

মাথা গোঁজার ঠাঁই ছিল না, আজ তার কোম্পানিতে কাজ করে ৩০০ কর্মী! বাড়ি বাড়ি গিয়ে পণ্য বিক্রি করা মানুষটির ২৫০ কোটির ব্যবসা, সফলতার এক নিদর্শন!

স্বপ্ন দেখা ভালো কারণ তা মানুষকে তার নিজের লক্ষ্য পূরণে উজ্জীবিত করে। সব মানুষই স্বপ্ন দেখেন কিন্তু খুব কম মানুষই আছেন যাদের জীবনের স্বপ্ন পূরণ হয়। আসলে পরিশ্রম, একাগ্রতার পাশাপাশি নতুন কিছু আইডিয়া জীবনে ঝুঁকি নেওয়ার ক্ষমতা থাকলে মানুষ অনেক ক্ষেত্রেই সফলতা লাভ করে। যেমনটা হয়েছিল শশাঙ্ক দীক্ষিতের ক্ষেত্রে। কলেজের শেষ বর্ষে পড়তে পড়তেই ঝুঁকি নিয়েছিলেন তিনি আর সেই ঝুঁকি নেওয়ার ফলে আজ তিনি সফল কোটিপতি একজন ব্যবসায়ী।

আরও পড়ুন: কর্পোরেট সেক্টরের চাকরি ছেড়ে ব্যবসা! অদ্ভুত আইডিয়ায় ব্যবসা করে ২০ কোটির মালিক এই ব্যক্তি!

কলেজের শেষ বর্ষে পড়ার সময় সম্পূর্ণ নতুন একটি স্টার্টআপ খোলার সিদ্ধান্ত নেন শশাঙ্ক। শশাঙ্ক দীক্ষিত ও তার তিন বন্ধু ব্রজেশ সচন, পরিতোষ মহানা, সোমেশ মিশ্র কলেজ ক্যাম্পাসের কাছের ছোট আউটলেট গুলির জন্য একটি সফটওয়্যার ডিজাইন করেন। এরপর ২০০৮ এ আইআইটি থেকে স্নাতক পাশ করবার পর সম্পূর্ণ নিজের একটি সফটওয়্যার তৈরি করেন শশাঙ্ক। তার এই সফটওয়ারটি ছোট ছোট ব্যবসার পুরো একাউন্টস সামলানোর কাজ করে। এরপর তিনি সিদ্ধান্ত নেন তার ব্যবসা বিদেশে নিয়ে যাবেন।

২০১২ তে ভারত থেকে তার ব্যবসা সিঙ্গাপুরে নিয়ে যাওয়ার জন্য তাকে অনেক কষ্ট সহ্য করতে হয়। প্রথমদিকে সিঙ্গাপুরে থাকা-খাওয়ার খরচ কমানোর জন্য চাঙ্গি বিমানবন্দরেই ঘুমোতেন তিনি, এতে তার ঘুমানোর জায়গা হিসেবে আলাদা ঘর বুক করতে হতো না তাকে, সেই টাকাটা সেভ হয়ে যেত। এরপর সিঙ্গাপুরে ঘরে ঘরে গিয়ে এই সফটওয়্যার বিক্রি করতে শুরু করেন শশাঙ্ক, ধীরে ধীরে এই সফটওয়্যারের জনপ্রিয়তা বৃদ্ধি পায়। সিঙ্গাপুরের এই ব্যবসা করবার জন্যই তার সফটওয়্যার টি বিখ্যাত হয়, পরবর্তীতে সিঙ্গাপুর সরকার ও তার ব্যবসার কাজে সাহায্য করেছিল এবং তার‌ পরে মালয়েশিয়াতে এই সফটওয়্যার সফলতা পায়।

আরও পড়ুন: গর্ভে সন্তান নিয়ে UPSC পরীক্ষায় উত্তীর্ণ! এই মহিলার সাফল্যের কাহিনী চমকে দেবে আপনাকেও

ঘরে ঘরে সফটওয়্যার বিক্রি করা মানুষটির কোম্পানিতে আজ কাজ করেন ৩০০ কর্মী। বর্তমানে তার কোম্পানির ট্রান ওভার ৪২ বিলিয়ন ডলার। তার কোম্পানির অফিস ডেস্ক ইরার মালয়েশিয়া, সিঙ্গাপুর এবং ইন্দোনেশিয়াতেও রয়েছে‌। ভারতের আটটা শহরে এই কোম্পানি নানাভাবে সার্ভিস দিয়ে থাকে। ব্যবসার প্রথমদিকে হাজারো সমস্যার সম্মুখীন হওয়া এই মানুষটি যদি সেদিনই হাল ছেড়ে দিতেন তাহলে আজকের এই সফলতা তিনি কখনোই দেখতে পেতেন না, ঘরে ঘরে সফটওয়্যার বিক্রি করা, জায়গার অভাবে বিমানবন্দরে ঘুমোনো মানুষটির কাছে ডেস্ক ইরার মত উদ্যোগ নেওয়াটা নিঃসন্দেহে ঝুঁকির ছিল কিন্তু আজ তিনি একজন সফল ব্যবসায়ী, ২৫০ কোটি টাকার ব্যবসা তার।

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Most Popular

Recent Comments