HomeSuccess Storiesডিফেন্সে চাকরি না পেয়ে শুরু করেন চাষবাস, আজ তার ইনকাম মাসিক দেড়...

ডিফেন্সে চাকরি না পেয়ে শুরু করেন চাষবাস, আজ তার ইনকাম মাসিক দেড় লক্ষ টাকা

কোনো মানুষের স্বপ্ন যখন পূর্ণ হয় না, তখন আপাতদৃষ্টিতে আমরা তাকে ব্যর্থ মানুষ বলি, কিন্তু ব্যর্থ মানুষ মানেই যে অসফল ব্যক্তি এমনটা কিন্তু নয়। আপাতদৃষ্টিতে যাকে ব্যর্থ বলে মনে হয়, সেও পরবর্তীকালে পরিশ্রমের দ্বারা নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে পারে ঠিক যেমন ভোজপুরের বেনুয়ার টোলার বাসিন্দা দীপক। ২৪ বছরের যুবক দীপক ডিফেন্সে চাকরি করবার স্বপ্ন দেখতো এবং সেই অনুযায়ী নিজেকে তৈরিও করছিলো কিন্তু কঠোর পরিশ্রম করার পরেও তার স্বপ্ন পূরণ হয়নি।ডিফেন্সের চাকরি পেতে ব্যর্থ হন দীপক, এই পর্যায়ে এসে অন্য কোনো মানুষ যখন ভেঙে পড়েন, তখন‌ই দীপক নতুন কিছু করবার কথা ভাবেন। না, নতুন কোন চাকরি নয়, তিনি চাষ করার কথা ভাবেন, চাষ করে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করার কথা ভাবেন আর এই চেষ্টায় আজ তিনি সফল।

ডিফেন্সের চাকরি না পেয়ে তিনি শুরু করেছিলেন গাঁদা ফুলের চাষ, আর সেই চাষের থেকেই আজ তার মাসিক ইনকাম দেড় লক্ষ টাকা- দীপকের জীবনের এই গল্প প্রমাণ করে মানসিক দৃঢ়তা ও সদিচ্ছা থাকলে মানুষ নিজেকে ঠিক প্রতিষ্ঠিত করতে পারেন। আপাতভাবে হেরে যাওয়া বা ব্যর্থ হ‌ওয়া সব‌ই আসলে ক্ষণিকের বিষয়।


আরও চাকরির খবর: গোয়েন্দা দপ্তরের গ্রুপ সি পদে কর্মী নিয়োগ চলছে, কীভাবে করবেন আবেদন জেনে নিন


দীপকের বাবা উপেন্দ্র কুমারও কৃষি কাজের সঙ্গে যুক্ত। তার বাড়ির সবাই চাষ বাস করতেন। তবে প্রত্যেকে গম ও ধান চাষ করতেন, দীপক সকলের থেকে আলাদা কিছু করবার কথা ভেবেছিলেন। তাই নিজের ক্ষেতে তিনি ফুল চাষ করতে শুরু করেন।

২০২০ সালে ৪ টি প্রজাতির গাঁদা ফুলের চারা রোপণ করেন তিনি, কিন্তু ভাগ্যের পরিহাসে এই সময়েই করোনা ভাইরাসের কারণে লকডাউন শুরু হয়ে যায়। দীর্ঘ লকডাউনের সময় মন্দির, মসজিদ বন্ধ থাকার জন্য দীপকের আড়াই বিঘা মাঠের ফুল চাষ নষ্ট হয় ও আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হতে হয় তাকে। কিন্তু এতেও ভেঙে পড়েননি তিনি। নতুন করে আবার শুরু করেছিলেন। আজ তার মাসিক ইনকাম দেড় লক্ষ টাকা। ভবুয়া, বক্সার, নোখা, বিক্রমগঞ্জ, সাসারাম, দেহরি, আরা, কাইমুর, পাটনা, পিরো, বাবুরা ইত্যাদি অনেক এলাকায় তার ফুলগুলি সরবরাহ করা হয়।

যে কোন বিয়ে, অনুষ্ঠান বা শুভ কাজ থাকলে তার জমির ফুল নেওয়ার জন্য অগ্রিম বুকিং করা হয়, এই সময় তিনি ‌ প্রতিদিন ৫০০০ টাকা আয় করেন। এছাড়া অফ সিজনেও তিনি তার ফুল থেকে প্রতিদিন প্রায় ১৫০০ টাকা আয় করেন।


আরও চাকরির খবর: মাধ্যমিক পাশেই রাজ্যের পোস্ট অফিসে চাকরির জন্য আবেদন করা যাবে, বিস্তারিত জানুন


দীপক বাবু তার এই গাঁদা ফুলের চাষ করার প্রসঙ্গে জানিয়েছেন, যখন তিনি ডিফেন্সে চাকরি পেলেন না তখন তিনি ভাবলেন নতুন করে চাকরি খুঁজে পাওয়ার চেষ্টা করতে করতে অনেক সময় নষ্ট হবে এবং এইরকম ভাবে চললে তিনি কোনদিনই আর সফল ব্যক্তি হতে পারবেন না তাই তিনি কৃষিকাজ করার সিদ্ধান্ত নিলেন এবং গাঁদা ফুলের চাষ শুরু করলেন। নিজের চাষ করা প্রসঙ্গে তিনি জানিয়েছেন যে, তিনি ইউটিউব থেকে ফুল চাষ করা শিখেছেন।

ভবিষ্যতের চাষীদের জন্য তার পরামর্শ,“ যতদিন কৃষকরা ঐতিহ্যবাহী ক্ষেতে সময় বিনিয়োগ করবেন ততদিন তারা ফুলের থেকে বেশি লাভ করতে পারবেন। আপনি জানুয়ারিতে উন্নত বীজ গাঁদার চাষ করে মার্চ থেকে অর্থ উপার্জন করতে পারেন।”

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Most Popular

Recent Comments